মণিরামপুর পৌরসভা নির্বাচন পোস্টারে ছেয়ে গেছে গোটা পৌর শহর নৌকা ও ধানের শীষের প্রচারনা চলছে সমানতালে, কাউন্সিলররা ও বসে নেই - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০২১

মণিরামপুর পৌরসভা নির্বাচন পোস্টারে ছেয়ে গেছে গোটা পৌর শহর নৌকা ও ধানের শীষের প্রচারনা চলছে সমানতালে, কাউন্সিলররা ও বসে নেই

নাছির খান, যশোর:অাগামী ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য মণিরামপুর পৌরসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের প্রচার-প্রচরনা বেশ জমে উঠেছে। প্রতিদিন বেলা দুইটা থেকে রাত অাটটা পর্যন্ত প্রচারনার মাইকের সাউন্ডে  সারা পৌরসভা সরগরম থাকে। রাস্তার মোড়ে মোড়ে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের পক্ষে কর্মী-সমর্থকেরা নির্বাচনী কার্যালয় বানিয়ে প্রচার-প্রচারনায় বাড়তি অায়োজন করেছে। এসব নির্বাচনী কার্যালয়কে ঘিরে সন্ধ্যার পর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত কর্মী-সমর্থকেরা তাদের পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে জনমত সৃষ্টির লক্ষ্যে ব্যাপকহারে  প্রচারনা চালাচ্ছে। পাশাপাশি প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের স্ব-স্ব ফটো ও প্রতীক সম্বলিত পোস্টার সাঁটানো হয়েছে দর্শনীয় সব স্থানে স্থানে।  পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে সারা পৌর শহর। কোথাও যেনো তিল ধারনের সামান্যতম ঠাঁই নেই। ফলে অাসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে গোটা পৌর এলাকা এখন পোস্টারের নগরীতে পরিনত হয়েছে। জানা যায়, গত ১১ জানুয়ারি প্রতীক বরাদ্দের দিন থেকে অামন্ন মণিরামপুর পৌরসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী ৩ জন মেয়র প্রার্থী, ৩৩ জন  সাধারন কাউন্সলর ও ১৫ জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী অানুষ্ঠানিকভাবে তাদের স্ব-স্ব প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করে প্রচারনা শুরু করেন।  পাশাশাশি প্রচারনা মাইক ও পোস্টার সাঁটানোর কাজ শুরু করেন। প্রথম দিনেই বিএনপি মনোনীত প্রার্থীর পৌর শহরের মেইন সড়কের ধারে সাঁটানো ধানের শীষ প্রতীকের পোস্টার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর কর্মীরা ছিড়ে ফেলেছে এমন অভিযোগ উঠে। এই ঘটনায় দুই পক্ষের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে অানতে সক্ষম হন।  প্রচার-প্রচারনা তথা পোস্টার সাঁটানো কিংবা কোন পোস্টার ছিড়ে ফেলাসহ কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা কোথাও অার ঘটেনি। ফলে নির্বাচনকে ঘিরে  প্রচার- প্রচারনায় সারা পৌর এলাকায় বেশ উৎসবমুখর পরিবেশ চলছে। তিনজন মেয়র প্রার্থীর মধ্যে বাংলােদেশ অাওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী উপজেলা অাওয়ামীলীগের সভাপতি ও বর্তমান মেয়র অালহাজ্ব অধ্যক্ষ কাজী মাহমুদুল হাসান ও বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী উপজেলা বিএনপির সভপতি ও সাবেক মেয়র অালহাজ্ব এ্যাড.শহীদ মোঃ ইকবাল হােসেন এই দুই প্রার্থীই নির্বাচনী প্রচারনায় সমানতালে এগিয়ে যাচ্ছেন। অন্যদিকে কাউন্সিলর প্রার্থীরাও স্ব-স্ব নির্বাচনী এলাকায় ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যেয়ে নিরলসভাবে ভোট প্রার্থনা করছেন। পৌর এলাকার ভোটার সাধারনের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, সাধারন কাউন্সিলর পদে কয়েকটি ওয়ার্ডে নতুন মুখের প্রার্থীদের জন্য বর্তমান কাউন্সিলর প্রার্থীরা বেশ বে-কায়দায় পড়েছেন। তবে সবচেয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে মোহনপুর ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর ও পৌর প্যানেল মেয়র-১ মোঃ কামরুজ্জামান কামরুল। এমন তথ্য সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের ভোটারদের কাছ থেকে পাওয়া গেছে। এ ছাড়া নির্বাচন করার  অভিজ্ঞতা, জনপ্রিয়তার দিক থেকে কাউন্সিলর প্রার্থী গৌর কুমার ঘোষ, মফিজুর রহমান, অাসাদুজ্জামান, অাজিম হোসেন, জামশেদ অালী, গীতা রানী কুন্ডু, পারভীনা অাকতার, শংকরী রানী বিশ্বাস, অনিমা মিত্র, গায়েত্রী রানী পাল সুবিধাজনক অবস্থানে রযেছে বলে বিভিন্ন ভোটার সাধারনের কাছ থেকে জানা গেছে। অন্যদিকে নতুন মুখের প্রার্থী সুমন দাস, পলাশ ঘোষ, ইমন হায়দার, অাব্দুল কুদ্দুস, অায়ুব পাটোয়ারী, সন্তোষ স্বর, কামরুজ্জামান, নির্বাচনী প্রচারনায় বেশ এগিয়ে রয়েছে বলে প্রচার পাচ্ছে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন