গোলাগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন : আ. লীগের টিকিট চান ৬ নেতা - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

রবিবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২০

গোলাগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন : আ. লীগের টিকিট চান ৬ নেতা

সংবাদ প্রতিদিন ডেস্ক:
সিলেটের গোলাপগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান ৬ নেতা। ইতিমধ্যে নৌকার প্রার্থী বাছাই উপলক্ষে পৌর আওয়ামী লীগের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মতবিনিময় সভায় জেলা ও উপজেলা নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে তৃণমূলের প্রস্তাবে ৬জনের নাম কেন্দ্রে পাঠানোর জন্য জেলা আওয়ামী লীগের কাছে দেওয়া হয়েছে।

এই ৬জনের সবাই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনতে হবে এবং তা পূরণ করে জমা দিতে হবে। এরপর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ড বসে যাচাই-বাছাই করে এজনকে  নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন দেওয়া হবে।

৬ মনোনয়ন প্রত্যাশী হলেন- গোলাপগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি, পৌর মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক, সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ রুহেল আহমদ, উপজেলা আ
ওয়ামী লীগের সাবেক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান চৌধুরী রিংকু, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি, পৌর কাউন্সিলর রুহিন আহমদ খান ও পৌর আওয়ামীলীগ নেতা মাজেদ শরীফ চৌধুরী।
    
এদিকে গোলাপগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে কে হচ্ছেন নৌকার প্রার্থী এ নিয়ে দলটির মধ্যে শুরু হয়েছে আলোচনা।

গোলাপগঞ্জ পৌরসভা প্রতিষ্ঠার পর থেকেই মেয়র পদটি রয়েছে আওয়ামী লীগের হাতে রয়েছে। তবে গত দুটি নির্বিচনে এখানে নৌকার প্রার্থী নির্বাচিত হননি। পৌরসভার উপ-নির্বাচনসহ গেল দুই নির্বাচনে নৌকার মাঝি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক, সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু। এই দুই বারই নৌকার ভরাডুবি হয়। নৌকার প্রার্থী পরাজিত হলেও এ দুটি নির্বাচনে বিজয় ছিনিয়ে এনেছিলেন আওয়ামীলীগের বিদ্রোহীরা।

২০১৫ সালে পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সিরাজুল জব্বার চৌধুরী বিজয়ী হন। ২০১৮সালের ৩১মে সিরাজুল জব্বার চৌধুরী মৃত্যুবরণ করলে ১১ জুলাই মেয়র পদটি শূন্য ঘোষনা করা হয়। পরে একই বছরের ৩অক্টোবর উপ-নির্বাচনে জয়লাভ করেন আওয়ামী বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেল।

গোলাপগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি আরিফ চৌধুরী কফি জানান, বিগত নির্বাচনে নৌকার ভরাডুবি হয়েছে যোগ্য প্রার্থীকে মনোনয়ন না দেওয়ার কারণে। আশা করছি এবারের পৌর নির্বাচনে এমন প্রার্থীকে মনোনয়ন দেবে না।  ৬ মনোনয়ন প্রত্যাশীর মধ্যে যোগ্য ও ক্লিন ইমেজের অধিকারী এমন ব্যক্তিকে যাতে এবারে নৌকার মাঝি করা হয়। এ নির্বাচন আওয়ামী লীগের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ কেন না বিএনপি এবার তাদের একক প্রার্থী দেবে।

পৌর আওয়ামীলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মামুন আহমদ জানান, এবারের পৌর নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে নির্দেশ দিয়েছেন সেই নির্দেশনার বাস্তবায়ন চাই গোলাপগঞ্জে।  এই ৬ মনোনয়ন প্রত্যাশীর মধ্যে যাচাই-বাছাই করে যোগ্য প্রার্থীকে যেন নৌকার মাঝি করা হয়। তাহলে আমরা নৌকাকে বিজয়ী করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিতে পারবো।

উল্লেখ্য,  পৌরসভার নির্বাচন ৪টি ধাপে অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে নির্বাচন কমিশন প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত পৌরসভার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে। তবে এ দুটি ধাপের নামের তালিকায় গোলাপগঞ্জ পৌরসভার নাম ঘোষণা করা হয়নি।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন