আমলার পরামর্শ কাজে লাগিয়ে তাদের বিপক্ষেই চান্দিমালের বাজিমাত - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

রবিবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০২০

আমলার পরামর্শ কাজে লাগিয়ে তাদের বিপক্ষেই চান্দিমালের বাজিমাত

সংবাদ প্রতিদিন ডেস্ক:
দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বক্সিং ডে টেস্টের প্রথম ইনিংসে চালকের আসনে সফরকারী শ্রীলঙ্কা। ম্যাচের প্রথম দিনে ৬ উইকেট হারিয়ে ৩৪০ রান করে ফেলেছে লঙ্কানরা। এর সিংহভাগ কৃতিত্ব অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান দিনেশ চান্দিমাল ও ধনঞ্জয় ডি সিলভার, দুজনই হাঁকিয়েছেন বিগ ফিফটি।

অথচ দক্ষিণ আফ্রিকায় নিজের সবশেষ সফরের টেস্ট সিরিজে হালে পানি পাননি চান্দিমাল। ২০১৬-১৭ মৌসুমের সেই সফরে তিন ম্যাচের ৬ ইনিংসে ১৪.১৭ গড়ে করেছিলেন সবমিলিয়ে করেছিলেন মাত্র ৮৫ রান। আর এবার প্রথম ম্যাচের প্রথম ইনিংসে আউট হওয়ার আগে করে ফেলেছেন ১৬১ বলে ৮৫ রান।

দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই সফরের মধ্যকার এ পরিবর্তনের বড় কৃতিত্ব সাবেক প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান হাশিম আমলাকে দিয়েছেন চান্দিমাল। মূলত আমলার পরামর্শ কাজে লাগিয়েই আমলার দলের বিপক্ষে রানের দেখা পেলেন শ্রীলঙ্কার সাবেক অধিনায়ক। এ কথা জানিয়েছেন চান্দিমাল নিজেই।

শনিবার দিনের খেলা শেষে নিজের ইনিংস সম্পর্কে চান্দিমাল বলেন, ‘ব্যাটিং করার জন্য ঐ সময়টা বেশ কঠিন ছিল। বিশেষ করে যখন আমাদের ৫৪ রানে ৩ উইকেট ছিল, দক্ষিণ আফ্রিকার বোলাররা দুর্দান্ত বোলিং করছিল। এ চাপের সময়টায় আমি প্রথম ৩০টা বল দেখেশুনে খেলতে চাচ্ছিলাম। এরপর সেখান থেকে এগুনোর পরিকল্পনা ছিল। যেভাবে খেলেছি, আমি খুবই খুশি।’

তখন চান্দিমালকে জানানো হয় যে, তার ইনিংসের প্রশংসা করেছেন হাশিম আমলা। এ কথা শোনার পর তিনি নিজেই তুলে ধরেন আমলার কাছ থেকে পাওয়া পরামর্শের কথা। এ বিষয়ে পরে আমলাও কথা বলেছেন।

চান্দিমাল বলেছেন, ‘আমার অবশ্যই আমলাকে ধন্যবাদ দেয়া উচিত। ২০১৬ সালের সফরে তার সঙ্গে আমার দারুণ এক আলাপ হয়েছিল। তিনি আমাকে বলেছিলেন, কীভাবে দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্যাটিং করতে হয়। যা অনেক কাজে দিয়েছে। আমি আশা করি, তারও সেই কথা মনে আছে।’

আসলেই মনে আছে আমলার। চান্দিমালের এ মন্তব্যের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমারও সেই আলাপের কথা মনে আছে। সে এসে আমাকে জিজ্ঞেস করেছিল, দক্ষিণ আফ্রিকায় ব্যাটিংয়ের জন্য কী পরামর্শ দেবো আমি? উপমহাদেশের অনেক খেলোয়াড়ের ক্ষেত্রেই এমন হয়। দক্ষিণ আফ্রকা, ইংল্যান্ড বা অস্ট্রেলিয়ায় রান করা তাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং হয়। কারণ কন্ডিশন পুরোপুরি আলাদা।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘তবে একটা জিনিস হলো, তারা সবসময় উন্নতি করতে চায়। আমরা বেসিক জিনিসগুলো নিয়েই কথা বলেছি। এর মধ্যে কোনও রকেট সায়েন্স নেই। আমি তার জন্য খুশি। বিশেষ করে যেভাবে ব্যাটিং করেছে, খুবই নিখুঁত মনে হয়েছে। বাজে বলগুলো ভালোভাবে কাজে লাগিয়েছে।’

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন