রায়হান হত্যা: বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০

রায়হান হত্যা: বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি

সংবাদ প্রতিদিন ডেস্ক:
সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনের মাধ্যমে রায়হান আহমদকে হত্যার বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করেছেন ‘দুষ্কাল প্রতিরোধে আমরা’ নামক নাগরিক মোর্চার সংগঠকরা।

রোববার (১৮ অক্টোবর) সিলেট জেলা প্রশাসকরে কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদী অবস্থান কর্মসূচী চলাকালে তারা এ দাবি জানান।

বক্তারা বলেন, দুষ্কাল আমাদের পেছন ছাড়ছে না। একের পর এক অভাবনীয় সব অন্যায়-অনাচার-নৃশংসতায় চমকে উঠছি। এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের রেশ না কাটতেই সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনের মাধ্যমে যুবককে হত্যা করা হয়েছে। আমরা এই দুষ্কাল থেকে মুক্তি চাই।

গত শুক্রবার ‘দুষ্কাল প্রতিরোধে আমরা’-এর উদ্যোগে ‘রং-তুলিতে দুষ্কাল’ কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়েছিলো। এতে অংশ নিয়ে সিলেটের ১২জন চিত্রশিল্পী রং আর তুলি আঁচড়ে দুষ্কালের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানান। ওই আয়োজনে শিল্পীদের আঁকা ছবি নিয়ে রোববার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে প্রতিবাদী অবস্থান কর্মসূচী পালন করা হয়।

এসময় বক্তারা বলেন, জেলা প্রশাসক জেলার আইনশৃঙ্খলা কমিটিরও সভাপতি। আমরা জেলা প্রশাসককে এই দুষ্কালের ছবিগুলো দেখাতে চাই। যাতে তিনি উপলব্ধি করতে পারেন এই সময়ে তার জেলায় কি ঘটছে। এসময় নৃশংসতা বন্ধে তিনি যাতে উদ্যোগী হন এই দাবিতে আমরা এখানে সমবেত হয়েছে।

বক্তারা বলেন, পুলিশ ফাঁড়িতে রায়হান হত্যার মামলা তদন্তের জন্য পিবিআইকে হস্তান্তর করা হলেও এখন পর্যন্ত আমরা তদন্তে তেমন কোনো অগ্রগতি দেখছি না। এখন পর্যন্ত কোনো অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। তাই আমরা মনে করি পুলিরে বিরুদ্ধে এই অভিযোগের সুষ্ঠ তদন্ত পুলিশের কোনো বাহিনী দ্বারা সম্ভব নয়। এ জন্য আমরা এই ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি করছি।

এই আয়োজনে সিলেটের বিভিন্ন চিত্রশিল্পী, সংস্কৃতিকর্মী, রাজনৈতিক সংগঠকসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অংশ নেন।

প্রতিবাদী অবস্থান কর্মসূচীতে অংশ নিয়ে সিলেটের প্রবীণ চিত্রশিল্পী অরবন্দি দাশগুপ্ত বলেন, যে সব জঘন্য ঘটছে তাতে আমাদের ঘরে বসে থাকার সুযোগ নেই। এই অনাচারের প্রতিবাদে সকলকে রাস্তায় নেমে এসে প্রতিবাদ করতে হবে। রাস্তাঘাটে যদি নারীর নিরাপত্তা না থাকে, পুলিশ হেফাজতেও যদি মানুষ নিরাপদ না হয় তাহলে আমরা কোথায় যাবো। আমরা এই অবস্থান থেকে পরিত্রাণ চাই। প্রশাসনকেই এ ব্যাপারে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে।

'দুষ্কাল প্রতিরোধে আমরা'র সংগঠক রাজীব রাসেলের সঞ্চালনায় এই মোর্চার সংগঠক আব্দুল করিম কিম বলেন, এমসি কলেজে ও বন্দর বাজার ফাঁড়িতে ঘটে যাওয়া সাম্প্রতিক ঘটনা পরবর্তী প্রতিক্রিয়া অভাবিত। নাগরিকদের এমন ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া আমাদের আশান্বিত করেছে, আমরা এখনো ধ্বংস হয়ে যাইনি। আজও মানুষ ভালোবাসার কথা বলে। মানুষ মানুষের পাশে দাঁড়ায়। অনৈতিকতা আর অন্যায়ের বিরুদ্ধে মানুষ আজও লড়ে যাওয়ার অদম্য বাসনা পোষন করে।

আমরা কাউকে কারো বিরুদ্ধে লড়াইয়ের মাঠে নামাতে চাই না। আমরা নিজেদের মধ্যে মানবিকতাবোধ জাগানোর লড়াই শুরু করতে চাই। আমরা চাই, দেশপ্রেম ও দায়িত্ববোধ সবার মাঝে জাগ্রত হোক। সে লক্ষ্যেই আজকের আয়োজন।

এতে সংহতি জানিয়ে আরও বক্তব্য রাখেন সাংস্কৃতিক সংগঠক জন শ্যাম, পরিবেশ কর্মী আশরাফুল কবির, ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন (ইমজা) সাধারণ সম্পাদক সজল ছত্রী, 'দুষ্কাল প্রতিরোধে আমরা'র সংগঠক দেবাশীষ দেবু,দেবব্রত চৌধুরী লিটন, নিরঞ্জন সরকার অপু, হিতাংশু কর, অরুপ বাউল, চিত্রশিল্পী সত্যজিত চক্রবর্তী, সাবেক ছাত্র নেতা রণেন সরকার রণি, মতিউর রহমান, চিত্রশিল্পী মো. আলাউদ্দিন আল আজাদ, আব্দুল মালেক, শাহিন আহমদ, আহমেদ ইয়াসিন, ছাত্রফ্রন্ট নগর শাখার সভাপতি সঞ্জয় কান্তি দাশ, ছাত্র ইউনিয়ন সিলেট জেলা শাখার সভাপতি সরোজ কান্তি, ছাত্রফ্রন্ট সংগঠক ফাহিম আহমদ চৌধুরী প্রমুখ।

অবস্থানের আগে মিছিল করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে হাজির হন 'দুষ্কাল প্রতিরোধে আমরা'র সংগঠকরা।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন