সৈয়দপুরে ধর্ষণ বিরুধী মানববন্ধন - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

বৃহস্পতিবার, ৮ অক্টোবর, ২০২০

সৈয়দপুরে ধর্ষণ বিরুধী মানববন্ধন


আজিজুল ইসলামঃ সাস্ট প্রতিনিধি
"নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ প্রতিরোধ এবং ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের দাবি নিয়ে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুরে মানববন্ধন।"

বর্তমানে দেশের সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা হলো ধর্ষন প্রতিরোধে আইনের সংস্কার এবং দলবল নির্বিশেষে ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের আইন কার্ষকর করা। সদ্য ঘটে যাওয়া সিলেটের এমসি কলেজের ঘটনা ও নোয়াখালিতে ঘটে যাওয়া নির্মম নৃশংসতা আমাদের বিবেক কে জাগ্রত করেছে। যেহেতু বাংলাদেশে ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড নেই তাই সমস্ত দেশবাসী আজ সোচ্চার হয়েছে ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড আইন কার্যকর করার জন্য।এজন্য সারা দেশব্যাপি ধর্ষন বিরোধী আন্দলনে মিডিয়া, সোশ্যাল মিডিয়া ও রাজপথে দেশের সকল স্তরের মানুষ জাগ্রত হয়েছে।
এরই প্রেক্ষিতে বিভিন্ন স্থানে নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করেছে সৈয়দপুরের সাধারন ছাত্র-ছাত্রী ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। আজ সকাল ৯ঃ০০ ঘটিকা হতে ১১ঃ৩০ ঘটিকা পর্যন্ত প্রায় ৪০ টির বেশি সংগঠন একত্র হয়ে মানববন্ধন করেন।এরপর ১১:৩০ মিনিট হতে ১২ঃ৩০ মিনিট পর্যন্ত সৈয়দপুর প্রেসক্লাবের সামনে সাধারণ ছাত্রছাত্রীরা একত্রিত হয়ে ছয় দফা দাবী রেখে একটি মানববন্ধন করেন। ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন উক্ত মানববন্ধনের আহবায়ক মুনতাসীর আহাদ। তিনি ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন, আইইউবির শিক্ষার্থী ফাইয়াজ কবির, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আজিজুল ইসলাম, ক্যান্টমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের জিন্নাত মালিয়াত সীমা, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির ফারিয়া কিবতিয়া ও বুয়েটের শিক্ষার্থী খালেদ মাহমুদ সৌরভ। বক্তব্যে তারা তাদের ছয় দফা দাবী তুলে ধরেন।
এ সময়ে তারা বলেন, আমাদের জন্মভুমি ও শিক্ষনগরী প্রিয় সৈয়দপুর। আমরা ছোটবেলা হতে এখানে বড় হয়েছি।আগের সময় এত ধর্ষনের ঘটনা ঘটত না।কিন্তু ইদানিং ধর্ষনের হার অতিরিক্ত ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে,যেটাতে আমরা আমাদের মা বোনদের নিরাপত্তা নিয়ে অনিশ্চিত। তাই আমরা আমাদের দাবি মাননীয় দেশরত্ন শেখহাসিনার কাছে তুলে ধরলাম,আমরা আশাবাদী তিনি এটাকে গুরত্ব সহকারে দেখবেন এবং আমাদের দাবিগুলো মেনে নিবেন।
মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা সৈয়দপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর স্মারক লিপি প্রদান করেন।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন