কমলগঞ্জে ১৩৯টি পূজামণ্ডপ দুর্গাপূজায় জন্য প্রস্তুত - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

বুধবার, ২১ অক্টোবর, ২০২০

কমলগঞ্জে ১৩৯টি পূজামণ্ডপ দুর্গাপূজায় জন্য প্রস্তুত

কমলগঞ্জে ১৩৯টি পূজামণ্ডপ দুর্গাপূজায় জন্য প্রস্তুত
সংবাদ প্রতিদিন ডেস্ক:
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় শারদীয় দুর্গাপূজায় প্রস্তুত হয়েছে ১৩৯টি সার্বজনীন পূজামণ্ডপ। বৃহস্পতিবার রাতে মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে সনাতনী ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। চলমান করোনাভাইরাস মহামারিতে দুর্গাপূজাকে ঘিরে আগের সেই উৎসবের আমেজ না থাকলেও দুর্গাপূজাকে পরিপূর্ণ রূপ দিতে মন্ডপগুলোতে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি।

ইতিমধ্যে উপজেলার অধিকাংশ পূজামণ্ডপে শেষ হয়েছে প্রতিমা তৈরির কাজ। এখন রঙ তুলির আঁচড়ে সৌন্দর্য বর্ধনের কাজ চলছে। মাটির কাজ শেষ করে রং তুলির খেলায় প্রতিমাকে সজ্জিত করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন মণ্ডপগুলোর মৃৎশিল্পীরা।

এদিকে এবার করোনায় পূজার আয়োজন সীমিত করতে বলা হয়েছে। আয়োজকদের ২৬টি নির্দেশনা অনুসরণ ও প্রতিপালনের কথা বলেছে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ। এর মধ্যে রয়েছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মহালয়ার অনুষ্ঠান সীমিত করা, নিচু শব্দে ভক্তিমূলক সংগীত ছাড়া অন্য সংগীত বাজানো থেকে বিরত থাকা এবং সব ধরনের সাজসজ্জা ও মেলার আয়োজন বন্ধ রাখা, আরতি প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিহার।

এবারের পূজার প্রতিমায় ব্যতিক্রম আনার চেষ্টা করেছেন বেশ কয়েকটি পূজামণ্ডপ। তবে মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এবার মণ্ডপগুলোতে তেমন আলোকসজ্জা দেখা যাবে না। সরকারি নির্দেশনা মেনে সাজানো হচ্ছে মণ্ডপগুলো। তবে পূজামণ্ডপগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি ও সরকারি বিভিন্ন নির্দেশনা মানতে অন্যান্য বছরের তুলনায় খরচ অনেকটা বেড়ে গেছে। বিগত বছরের তুলনায় এ বছর ভিন্ন নির্দেশনা থাকায় অনেকটা হিমশিম খাচ্ছেন আয়োজকরা। এবারের পূজোয় থাকছে না জাকজমকপূর্ণ কোন অনুষ্ঠান। এরপরও থেমে নেই কোনো কাজ। সরকারি নির্দেশনা মেনে সাজানো হচ্ছে মণ্ডপ ও তার আশপাশ। স্বাস্থ্যবিধি মেনে রাত-দিন চলছে পূজার প্রস্তুতি।

কমলগঞ্জ উপজেলায় মোট সার্বজনীন পূজামণ্ডপের সংখ্যা ১৩৯টি। তার মধ্যে কমলগঞ্জ পৌরসভায় ৭টি, রহিমপুর ইউনিয়নে ১৯টি, পতনউষার ইউনিয়নে ১৬টি, মুন্সীবাজার ইউনিয়নে ১৫টি, শমসেরনগর ইউনিয়নে ১৪টি, কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নে ৭টি, আলীনগর ইউনিয়নে ২০টি, আদমপুর ইউনিয়নে ১৩টি, মাধবপুর ইউনিয়নে ১৮টি ও ইসলামপুর ইউনিয়নে ১০টি পূজামণ্ডপ রয়েছে এবং ১১টি ব্যক্তিগত পূজামণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে।

উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল চন্দ্র দাস বলেন, শারদীয় দুর্গাপূজা আনন্দঘন ও শান্তিপূর্ণভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে উদযাপনের লক্ষ্যে আমরা সর্বপ্রকার সর্তকতা অবলম্বন করছি। সার্বিকভাবে পূজা করার জন্য মন্ডপকমিটিগুলোকে অভিহিত করেছি। আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর পাশাপাশি অধিকতর নিরাপত্তা জোরদারের জন্য প্রত্যেক মণ্ডপে মন্ডপকমিটির নিজ উদ্যোগে অধিকসংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক রাখার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। অপ্রীতিকর ঘটনা রোধে আয়োজকদেরও সতর্ক থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান জানান, কমলগঞ্জের ১৩৯টি সার্বজনীন পূজামণ্ডপে শান্তিপূর্ণ ভাবে পূজা উদযাপনের লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে সবধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। সবকটি পূজামণ্ডপ এলাকায় আইনশৃঙ্খলা জোরদার করা হয়েছে। পূজামণ্ডপগুলোর নিরাপত্তা রক্ষায় পুলিশের ১০টি মোবাইল টিম পূজাচলাকালীন সময়ে সার্বক্ষণিক কাজ করবে।

কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে উৎসবমুখর ও শান্তিপূর্ণভাবে পূজা উদযাপনের জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সবধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। সরকারি স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কিত গাইডলাইন মেনে দুর্গাপূজা উদযাপনের জন্য কমলগঞ্জ উপজেলার প্রত্যেকটি পূজামণ্ডপকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন