শ্রীমঙ্গল সবজী চাষে সফলতা - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০

শ্রীমঙ্গল সবজী চাষে সফলতা

সংবাদ প্রতিদিন ডেস্ক:
করোনায় কালে বন্ধ থাকার কারণে শ্রীমঙ্গল সিন্দুরখান হাজী আব্দর গফুর স্কুল এন্ড কলেজের পরিত্যাক্ত মাঠে শিক্ষকরা চাষ করেছেন মৌসুমী সবজী। ইতোমধ্যে সবজী উত্তোলনও শুরু হয়েছে। ব্যাতিক্রমী এ উদ্যোগের ফলে উপজেলা জুড়ে সুনাম কুড়ানোসহ অনুকরনীয় হয়েছেন তারা।
বিষয়টি নজর কারে জেলা কৃষি বিভাগ ও আর্šÍজাতিক বীজ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান লাল তীর সীড লিমিটের কর্তৃপক্ষসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমকর্মীদের।
বুধবার ১৬ সেপ্টেম্বর লাল তীর সীড এর উদ্যোগে এই ব্যাতিক্রমী সবজির মাঠ পরিদর্শনে আসেন মৌলভীবাজার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক কৃষিবিদ লুৎফুল বারী, মাল্টিমোড গ্রুফের পরিচালক তাজওয়ার এম আউয়াল, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নিলুফার ইয়াছমিয়ন মুনালিসা সুইটি, সিন্দুরখান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল হেলাল, শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক বিকুল চক্রবর্তী, লালতীর সীড এর বিভাগীয় পরিচালক তাপস চক্রবর্তী ও আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক কৃষিবিদ গোলাম আজম।

সবজী চাষের মুল উদ্যোক্তা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফিরোজ আহমেদ এর সভাপতিত্বে এলাকার কৃষক, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিবাকদের দিয়ে অনুষ্ঠিত হয় এক অবহিতকরণ সভা।
সভায় বক্তারা বলেন, কৃষি চাষে এটি একটি অনুকরনীয় দৃষ্টান্ত। এতদঅঞ্চলে বৃহৎ আকারে স্কুল কৃষি এটাই প্রথম। তবে লকডাউন শেষ হয়ে গেলেও মাঠের বাহিরে পরিত্যাক্ত জমিতে সবজী চাষ অভ্যাহত রাখার পরামর্শ দেন অতিথিরা। তারা বলেন প্রয়োজনে শিক্ষার্থীদের দিয়ে সাপ্তাহে একদিন কিছু সময় কাজ করানোর। এতে শিক্ষার্থীরা সবজী চাষের নিয়ম শিখবে এবং বড় হয়ে চাষে উদ্বুদ্ধ হবে।
এ সময় প্রধান শিক্ষক জানান, গত জুন মাস থেকে লাল তীরের কাছ থেকে বিভিন্ন জাতের বীজ নিয়ে এই সবজি চাষ শুরু করেন। আর এই সবজি চাষ করে তিনি এলাকায় সকলের প্রশংশা পাচ্ছেন। ইতিমধ্যে সবজি উত্তোলণও শুরু করেছেন। সকল শিক্ষক, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও আশে পাশের লোকজনকে বিতরণ করে তারা বেশ কিছু বিক্রিও করতে পেরেছেন। তিনি জানান, শ্রমিক ও মাঠ খরচ বাদে অতিরিক্ত টাকা স্কুল ফান্ডে জমা করবেন।
বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল্লাহ আল হেলাল জানান, শুধু সবজী নয় স্কুল বন্ধ থাকায় অবসর সময় কাজে লাগাতে বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বিভিণ্ন প্রজাতির দুই হাজারেও অধিক ফলজ, ভেষজ ও বনজ বৃক্ষ রোপন করেন।
মাল্টিমোড গ্রুফের পরিচালক তাজওয়ার এম আউয়াল জানান, লাল তীরের বীজ দিয়ে ব্যাতিক্রমী এই সবজি চাষের খবর পেয়ে তিনি ঢাকা থেকে এখানে এসেছেন। তিনি মাঠ পরিদর্শন করে তিনি খুবই খুশি। এটি সারা দেশের জন্য অনুকরণীয় দৃষ্ঠান্ত বলে জানান তিনি।
এই মহতি উদ্যোগের জন্য লাল তীর সীডের পক্ষ থেকে তিনি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে উপহার তুলেদেন। ঢাকা থেকে বিদ্যালয় পরিদর্শন করে যাওয়ার জন্য এবং বীজ দিয়ে সহায়ার জন্য মাল্টিমোড গ্রুফের পরিচালক তাজওয়ার এম আউয়াল ও পরামর্শ দিয়ে সহায়তার জন্য মৌলভীবাজার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক লুৎফুল বারী কে সম্মাননা স্মারক দেয় বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন