কমিটি দিয়ে তোপের মুখে সিলেট জেলা ছাত্রদল - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

কমিটি দিয়ে তোপের মুখে সিলেট জেলা ছাত্রদল

সংবাদ প্রতিদিন ডেস্ক:
২০১৮ সালের জুন মাসে ঘোষিত হয়েছিলো সিলেট জেলা ছাত্রদলের কমিটি। এরপর পেরিয়ে গেছে দুই বছর। দুই বছর সম্প্রতি নিজেদের আওতাধিন ৩৩ টি ইউনিট কমিটি অনুমোদন দেয় সিলেট জেলা ছাত্রদল। তবে এ কমিটি দিয়ে তোপের মুখে পড়েছেন জেলা ছাত্রদলের নেতারা। বিভিন্ন উপজেলায় আন্দোলনে নেমেছেন পদবঞ্চিতরা। ঘোষিত কমিটি বাতিলের দাবি জানিয়েছেন তারা।

গত গত ৯ জুন সিলেট জেলা ছাত্রদল ১২ উপজেলা, ৫টি পৌরসভা ও ১৭টি কলেজসহ মোট ৩২টি ইউনিটের আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেয়। এরপরদিন ঘোষণা করা হয় জকিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি।

কমিটির তালিকা প্রকাশের পর থেকেই বিভিন্ন উপজেলায় বিক্ষোভে নেমেছেন পদবঞ্চিতরা। কমিটি প্রত্যাখান করে অনেক এলাকায় ঝাড়ু মিছিলও করার হয়েছে। ঘোষিত কমিটি বাতিলের দাবিতে সময়সীমাও বেধে দিয়েছেন কয়েকটি এলাকার পদবঞ্চিতরা।

সিলেটে দীর্ঘদিন থেকেই নিষ্ক্রিয় ছাত্রদল। নেতই তেমন কোনো কর্মসূচী। কেন্দ্র ঘোষিত বিভিন্ন কর্মসূচী দায়সারাভাবে পালন ছাড়া সিলেটে ছাত্রদলের নেই তেমন কোনো সাংগঠনিক তৎপরতা। এজন্য অবশ্য দলটির নেতাকর্মীরা সরকারি নিপীড়ন ও মামলা-হামলাকে দায়ী করে আসছেন। তবে এবার কমিটি নিয়ে বিরোধ থেকে সিলেটে দীর্ঘদিন পর মাঠে দেখা যাচ্ছে বিএনপির এই সহযোগি সংগঠনটির নেতাকর্মীদের। এতে করে আবার আলোচনায় উঠে এসেছে ছাত্রদলের আভ্যন্তরীন বিরোধ ও কোন্দলের বিষয়টি। ফলে ইউনিট কমিটি গঠন সংগঠনকে চাঙ্গা করার বদলে বিরোধকেই আরও বাড়িয়ে তুলেছে।

৯ সেপ্টেম্বর কমিটি ঘোষলার পর ১১ সেপ্টেম্বর নবগঠিত সিলেট সদর উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে পদবঞ্চিতরা। নবগঠিক কমিটিকে পকেট কমিটি আখ্যা দিয়ে তা বাতিলেরও দাবি জানান বিক্ষোভকারীরা।

জকিগঞ্জ ও কানাইঘাট উপজেলার কমিটি নিয়েও পদবঞ্চিতরা আন্দোলনে মেনেছেন। ঘোষিত কমিটির বিরুদ্ধে ঝাড়ু মিছিলও হয়েছে এসব উপজেলায়। গোলাপগঞ্জ উপজেলা পৌর ও ঢাকা দক্ষিন ডিগ্রি কলেজ কমিটি নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করেন পদবঞ্চিত ছাত্রদল নেতারা।

জকিগঞ্জ এবং কানাইঘাটের উপজেলা, পৌর এবং কলেজ মিলিয়ে ৮ টি ইউনিট কমিটি নিয়ে প্রতিদিনই বিক্ষোভ করছেন পদবঞ্চিতরা। ঝাড়ু মিছিল-জুতা মিছিল হচ্ছে প্রতিদিনই।

আন্দোলনকারীদের অভিযোগ হলো, দলের নির্যাতিত, মেধাবী এবং প্রকৃত ছাত্রদের বাদ দিয়ে বয়স্ক, অছাত্র, বিভিন্ন পেশায় কর্মরত এবং বিভিন্ন দল থেকে অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ জন্য তারা জেলা ছাত্রদলের নেতৃত্বকে দায়ী করছেন।

এ ব্যাপারে জকিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক আহবায়ক আব্দুল্লাহ আল মামুন হিরা বলেন,  সিলেট জেলার ছাত্রদলের অন্যতম একটি ঘাঁটি হচ্ছে জকিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদল কিন্তু এই উপজেলা ছাত্রদলের যে কমিটি গঠন করা হয়েছে তা প্রশ্নবিদ্ধ। কমিটিতে ত্যাগিদের মূল্যায়ন করা হয় নি। আব্দুল জব্বার রুবেল নামে যাকে আহবায়ক করা হয়েছে তিনি গত ইউপি নির্বাচনে ধানের শীষের প্রার্থীর বিরুদ্ধে কাজ করেছেন। এছাড়া তার বিরুদ্ধে নারীঘটিত অভিযোগও আছে। সব বিতর্কিত ব্যাক্তিদের দিয়ে কমিটি দেওয়া মানে ছাত্রদলকে বিপদের মুখে টেলে দেওয়া।

কমিটি নিয়ে ক্ষোভ প্রসঙ্গে সিলেট জেলা ছাত্রদল সভাপতি আলতাফ হোসেন সুমন বলেন, ছাত্রদল একটি বৃহত্তম দল সেখানে প্রতিযোগিতা থাকবে। কমিটিতে স্থান না পেয়ে বিভিন্ন জায়গায় ছাত্রদলের কর্মীরা বিক্ষোভ করছেন। তাদের সবাইকে পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে স্থান দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ও ছাত্রদলের সিলেট সাংগঠনিক টিম লিডার ওমর ফারুক কাওছার বলেন, জেলার ৩৩ টি ইউনিটের কমিটি গঠন হয়েছে। সেখানে কিছু বিরোধীতা থাকবেই। তবে বিতর্কিতদের কমিটিতে স্থান দেওয়ার ব্যাপারে আমরা এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে অবশ্যই খোঁজ নিয়ে দেখবো।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন