বিজয় নিউজ টিভির সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি হলেন এডভোকেট বনশ্রী দাস অপু - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

শুক্রবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

বিজয় নিউজ টিভির সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি হলেন এডভোকেট বনশ্রী দাস অপু

নিজস্ব প্রতিনিধি:
বিজয় নিউজ টিভির সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি হলেন এডভোকেট বনশ্রী দাস অপু সহ-সভাপতি সিলেট মহানগর বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ।
সাংবাদিকতা! একটা দারুণ-অসাধারণ পেশা। হাতে অস্ত্র না তুলেও যে যুদ্ধ করা যায় তা সাংবাদিকরা দেখাতে পারে। সাংবাদিকতা একটা মহৎ পেশা। যদি কোনো সাংবাদিক তার নিজ দায়িত্বের পথে অটল থেকে কাজ করে যায় তাহলে এর চেয়ে আর ভালো কাজ আর কিছু হতে পারে না। সরাসরি যুদ্ধে না নেমেও যুদ্ধে অংশ নিতে পারে একজন সাংবাদিক। একজন সাংবাদিক ন্যায়ের প্রতীক, অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার হবার দীপ্ত প্রতিশ্রুতি।

দিকে দিকে সাংবাদিকতা পেশা নানান কথাবার্তা। নানান জল্পনা কল্পনা রয়েছে এই বিষয়ে। গুগলে সাংবাদিকতা নিয়ে সার্চ করলে সাংবাদিকদের হতাশার খবর আসে। সাংবাদিকদের জীবনের ঝুঁকি, সাংবাদিকদের ভবিষ্যৎ নিয়ে সকলের ভাবনার শেষ নেই।

একজন সাংবাদিকের যেমন জীবনের ঝুঁকি থাকে তেমনি তার পাওয়ারও অনেক কিছু থাকে। একজন সাংবাদিক পারে একটা অনিয়মের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে আর তাকে ভেঙে চুড়ে তছনছ করে দিতে। একটা সাংবাদিক পারে আসল সন্ত্রাসী-অপরাধীদের খুঁজে বের করতে। আমাদের দেশে এখনো অনেক মানুষ আছে যারা সকালের নাস্তার চেয়ে খবরের কাগজটাকে বেশি মূল্যবান মনে করে। যেদিন খবরের কাগজ বন্ধ থাকে সেদিন অস্থির হয়ে যায় এমন মানুষও পাওয়া যায়। এতক্ষণ ধরে এইসকল কথা শুধু একটা কারণে বললাম। সেটা হলো এই সাংবাদিকতা পেশাকে একটা তামাশা বানানোর চেষ্টা করেন কিছু তথাকথিত সাংবাদিকরা। আমি একদম স্পষ্ট করে বলতে চাই, কিছু অনলাইন সাংবাদিকরা।

আমাদের দেশে এখন অনলাইন পোর্টাল করতে এক হাজার টাকাও লাগে না অনেক সময়। আর এরকম ভুড়ি ভুড়ি অনলাইন পোর্টাল এসে আমাদের জনজীবন অতিষ্ঠ করে তুলছে। হ্যাঁ, কেউ আবার ভাববেন না যে আমি অনলাইন নিউজের বিরোধিতা করছি। অনলাইন নিউজতো অবশ্যই দরকার। এখন টেকনোলজির যুগ, আমরা অনলাইনে নিউজ পড়বো এটাতো ভালো কথা। কিন্তু যদি এমন হয় যে, নিউজের হেডলাইন থাকে কারো মৃত্যু কিংবা এক্সিডেন্টের সংবাদ আর ভিতরে গিয়ে দেখা যায় নাটক-সিনেমার শুটিংয়ের কাহিনী! এমনকি একজন জীবিত মানুষকে মৃত বানিয়ে ফেলছে এই ধরনের পোর্টালগুলো। বিনা কারণে যাকে ইচ্ছা তাকে যেকোনো অপরাধে ফাঁসিয়ে দিচ্ছে তারা।

এসব তারা কেনো করছেন? সস্তা জনপ্রিয়তা পাওয়ার জন্যই তো! ভালো আর মানসম্মত নিউজ করেও তো জনপ্রিয়তা অর্জন করা যায়, তা করুন। এখন কথা হচ্ছে, সকল অনলাইন পোর্টালকে নিবন্ধিত করতে হবে। নিবন্ধনের বাহিরে যারা থাকবে তাদের বন্ধ করে দেয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। আর সবচেয়ে বড় কথা হলো, পোর্টাল হলেই যে নিবন্ধন হবে তা নয়। নিবন্ধিত হবার একটা সর্বনিম্ন যোগ্যতা থাকতে হবে। বাংলাদেশে বর্তমানে প্রায় ১০ হাজার অনলাইন পোর্টাল আছে, নিবন্ধন চেয়েছে দুই হাজারের বেশি পোর্টাল। আর শুধু আবার অনলাইন পোর্টালের উপর দোষ দিলেও হবে না।

আমাদের সবারই এ ব্যাপারে সচেতন হতে হবে। কেউ জেনো আবেগ-রাগ-ক্ষোভ কিংবা কোনো ধরনের লোভের বশবর্তী হয়ে নিউজ করে তা খেয়াল রাখতে হবে। অনলাইন সাংবাদিকতা ও মোবাইল সাংবাদিকতাকে অনেক সহজ করে দিয়েছে। নাগরিক সাংবাদিকতার সূত্রপাত সাধারণ জনগণকেও সাংবাদিকতার সাথে জড়িত করেছে। তবে এসব মাধ্যমে তথ্যের বহুলতা, ভুয়া তথ্যের ছড়াছড়ি নানান ধরনের সমস্যাও রয়েছে।

সাংবাদিক মানেই এগিয়ে যাওয়া, পিছু হটা নয়। এগিয়ে যেতে গিয়ে যুগে যুগে বহু সাংবাদিকদের ক্ষতিসাধন হয়েছে। জীবন দিতে হয়ে বহু সাংবাদিকদের। ভয়ভীতি, হুমকি, মামলা বহু বাধা আসে কিন্তু সাংবাদিকরা এগিয়ে যায় তাদের আপন ছন্দে, নৈতিক দায়িত্ব আর মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার প্রত্যয় নিয়ে।

সর্বোপরি মহান পেশার মহত্ব ধারণ করার জন্য সকল সাংবাদিকদের অঙ্গীকারবদ্ধ হতে হবে

সত্য সংবাদ দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন www.bijoynewstv.com
Email: bijoynewstv2020@gmail.com

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন