চুনারুঘাটে রাস্তায় ধান মাড়াই খড় শুকানো হচ্ছে , ঘটে যেতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

শনিবার, ২৯ আগস্ট, ২০২০

চুনারুঘাটে রাস্তায় ধান মাড়াই খড় শুকানো হচ্ছে , ঘটে যেতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা

নাছির উদ্দিন লস্কর, চুনারুঘাট:
হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলায় এভাবেই চলছে রাস্তার মধ্যে মাড়াই করে ধান সংরক্ষণ ও খড় শুকানোর কাজ। ফলে ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন সহ সাধারণ পথচারী। খবর নিয়ে জানা যায় মিরাশী ইউনিয়নের বড়াব্দা হকশা মৌওলা রাস্তা সহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দাদের পরতে হচ্ছে এই বিভ্রান্তিতে।

বোরো আর আমন মৌসুমে চাষিদের হিড়িক পড়ছে খড় শুকানো ও ধান সংরক্ষণ কাজ। আর এই কাজের জন্য বেছে নেয়া হয়েছে  গ্রাম-গঞ্জের পিচ ঢালা রাস্তাগুলোকে। তবে সড়কে শুকাতে দেয়া খড়ের কারণে দুর্ঘটনায় পড়তে হয় ছোট  যানবাহনসহ পথচারীদের। এমনি দৃশ্য চোখে পড়ে চুনারুঘাটের ১০ নং মিরাশী ইউনিয়নের -হকশা মৌওলা বড়াব্দা রাস্তা,রেমা কালেঙ্গা রাস্তা, গাজিপুর ইউনিয়ন, 
রানিগাও ইউনিয়নের সড়কসহ গ্রামের বিভিন্ন রাস্তা।
ইতিমধ্যে সাইকেল-মোটরসাইকেল খড়ে পিছলে দুর্ঘটনাও ঘটছে। আহত হয়ে চুনারুঘাট  হসপিটালে ভর্তি হয়েছেন অনেকেই। বিশেষ করে অনেক সময় তারা রাস্তা বন্ধ করে ঘন্টার পর ঘন্টা মাড়াই কাজে ব্যস্ত থাকে,তাতে রোগীদের নিয়ে ভোগান্তিতে পরতে হচ্ছে। তারপরে আবার মানুষ খড় শুকিয়ে রাস্তায় পালা করে রেখেছে। এমন অবস্থায় দুইটি গাড়ি কিভাবে আসা-যাওয়া করবে। এতে করে যেকোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। 

একজন অটো-রিক্সা চালক বলেন, যেভাবে রাস্তায় খড় বিছিয়ে রেখেছে, কখন যে কি হয়। গাড়ি জোরে টানতে পারছিনা। ব্যাটারির চার্জও তাড়াতাড়ি শেষ হয়ে যায়। 

মোটরসাইকেল আরোহী সায়েদ আহমেদ বলেন খড় তো পিচ্ছিল, গাড়ি চালাতে ভয় হচ্ছে। আবার বৃষ্টি হলে আরো পিচ্ছিল হয়ে যায়। কয়েকদিন আগে একটুর জন্য এই রাস্তায় দুর্ঘটনার হাত থেকে বেঁচে গেছি আমি। 

একজন পথচারী অভিযোগ করে বলেন, 'ধানের সময় হলেই এই রাস্তাগুলোর বেহাল দশা হয়। চলাচলে খুব কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়। 

এবিষয়ে চুনারুঘাট  উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেছেন ধান চাষিরা এভাবে রাস্তায় খড় রাখতে বা শুকাতে পারেনা রাস্তায় খড় শুকানো আইনিয় দণ্ডনীয় অপরাধ। কেউ এই নির্দেশ অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন