দুই কিশোরীকে দলবেঁধে ধর্ষণ, গ্রেফতার ২ - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

বুধবার, ১৯ আগস্ট, ২০২০

দুই কিশোরীকে দলবেঁধে ধর্ষণ, গ্রেফতার ২


সংবাদ প্রতিদিন ডেস্ক: 
ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলায় দুই কিশোরীকে দলবেঁধে ধর্ষণের মামলায় দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) রাত ১০টার দিকে উপজেলার সেনুয়া বাজার এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয় বলে জানান পীরগঞ্জ থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) খায়রুল আনাম।

এর আগে রাত ৯টার দিকে দুই কিশোরীর মধ্যে এক কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে নয়ন ইসলাম (২২), মোহাম্মদ সবুজ (২০), হিরেন চন্দ্র শীল (২৬), ফরিদ হোসেন (২২) ও সেলিমকে (২২) আসামি করে পীরগঞ্জ থানায় ধর্ষণ মামলা করেন।

গ্রেফতাররা হলেন পীরগঞ্জ উপজেলার সেনুয়া বানিয়াপাড়া গ্রামের আলতাফুর রহমানের ছেলে নয়ন ইসলাম ও একই উপজেলার ভোমরাদহ চিলাছাপা গ্রামের ওসমান আলীর ছেলে মোহাম্মদ সবুজ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পীরগঞ্জ থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) খায়রুল আনাম জানান, মামলার বাদীর ১৭ বছরের মেয়ে ময়মনসিংহের ভালুকা এলাকায় সুতার ফ্যাক্টরিতে চাকরি করতো। সেই ফ্যাক্টরিতে কাজের বিভিন্ন বিষয়ে নয়ন ইসলাম মেয়েটিকে সহযোগিতা করতেন। এতে তাদের মধ্যে ভালো একটা সম্পর্ক তৈরি হয়। গত জানুয়ারি মাসে চাকরি ছেড়ে দিয়ে মেয়েটি বাড়িতে ফিরে আসে। পূর্ব পরিচয় থাকায় তাদের বাড়িতে কয়েকবার যাতায়াত করেছেন নয়ন ইসলাম।

গত সোমবার (১৭ আগস্ট) বিকেলে নয়নের সঙ্গে দেখা করার জন্য ওই মেয়েটি প্রতিবেশী আরেক কিশোরীকে (১৪) নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে পীরগঞ্জ উপজেলা শহরে যায়। সেখানে নয়নের সঙ্গে তাদের দেখা হয়। এ সময় সঙ্গে থাকা ফরিদ, হিরেন ও সেলিমের সঙ্গে ওই দুই কিশোরীকে পরিচয় করে দেন নয়ন ইসলাম। এ সময় মেয়েটি মোবাইলের ব্যাটারি কেনার কথা নয়নকে জানায়। পরে নয়ন ওই দুই কিশোরীকে জানায় পীরগঞ্জের লোহাগাড়া বাজারে তার পরিচিত মোবাইলের দোকান রয়েছে। সেখান থেকে কম দামে ব্যাটারি কেনা যাবে।

পুলিশ কর্মকর্তা খায়রুল আনাম জানান, নয়নের কথা মতো ওই দুই কিশোরী নয়নের বন্ধু সেলিমের মোটরসাইকেলে করে লোহাগাড়া বাজারে যায়। নয়ন ও হিরেন বাসযোগে লোহাগাড়া বাজারে যায়। সেখানে মোবাইলের ব্যাটারির দাম বেশি হওয়ায় নয়ন তার বন্ধু সেলিম, ফরিদ ও হিরেনকে নিয়ে অপর আসামি সবুজের ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় ওই দুই কিশোরীকে নিয়ে পুনরায় পীরগঞ্জ উপজেলা শহরে আসে। পরে পীরগঞ্জেই একটি মোবাইলের দোকান থেকে ব্যাটারি ক্রয় করে তারা। এর মধ্যে সন্ধ্যা ৭টা বেজে গেলে কৌশলে ওই দুই কিশোরীকে সবুজের অটোরিকশায় করে নয়নের বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পথে তারা হিরেনের কাছে থাকা জুস ও পটেটো চিপস ওই কিশোরীদের খাওয়ায়। এতে দুই কিশোরীর ঘুম ঘুম ভাব ধরে।

পরে অটোরিকশায় কৌশলে দুই কিশোরীকে সবুজের ভোমরাদহ এলাকার বাড়িতে নিয়ে যায় তারা। এরপর সেখানে ওই দুই কিশোরীকে নয়নসহ তার চার বন্ধু ধর্ষণ করে। পরে সবুজের বাড়ি থেকে দুই কিশোরীকে বের করে পার্শ্ববর্তী নজিবুল হকের আখ ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে পুনরায় তাদের ধর্ষণ করা হয়। এতে দুই কিশোরী জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। এসময় স্থানীয় লোকজনের টর্চ লাইটের আলো দেখতে পেয়ে আখ ক্ষেতে দুই কিশোরীকে ফেলে চলে আসে নয়নসহ তার বন্ধুরা। মঙ্গলবার ভোরে আখ ক্ষেত থেকে ওই দুই কিশোরী বের হয়ে একটি অটোরকিশায় তাদের বাড়িতে ফিরে এসে ঘটনা সম্পর্কে পরিবারের লোকজনকে জানায়।

খায়রুল আনাম বলেন, ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে দুই কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। অন্যদিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার নয়ন ইসলাম ও সবুজ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে ঠাকুরগাঁও জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মামলাটি তদন্ত করা হচ্ছে এবং ঘটনার সঙ্গে জড়িত বাকি আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন