মেসি আসেননি, কান্নায় ভেঙে পড়লেন ভক্তরা - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

সোমবার, ৩১ আগস্ট, ২০২০

মেসি আসেননি, কান্নায় ভেঙে পড়লেন ভক্তরা

স্পোর্টস ডেস্ক:
ভালোবাসা বুঝি একেই বলে। মেসিকে কতটা ভালোবাসেন ভক্তরা, তা রোববার ন্যু ক্যাম্পের সামনেই দেখা গেল। বার্সেলোনার প্রাক-মৌসুম অনুশীলন শুরু হবে। তার আগে করোনা টেস্ট করতে হবে ফুটবলারদের। কিন্তু করোনার পিসিআর টেস্ট করতে অস্বীকৃতি জানান মেসি। যেখানে বার্সা ছাড়ার ইচ্ছার কথাই প্রকাশ করেছেন, সেখানে তিনি কেন পিসিআর টেস্ট করতে যাবেন?

তবুও এক বুক আশা নিয়ে বার্সাভক্তরা ন্যু ক্যাম্পের সামনে জড়ো হয়েছিল। যদি মেসির গাড়িটা দেখা যায়! যদি গাড়ির কাচ ভেদ করে প্রিয় তারকাকে একনজর দেখার স্বাদ পূরণ হয়!

কিন্তু না, মেসি আসেননি। মেসি আসেননি বলে হতাশায় মুষড়ে পড়েছেন তার ভক্ত-সমর্থকরা। মেসির ১০ নাম্বার জার্সিটা পরে তারা অপেক্ষা করছিলেন ন্যু ক্যাম্পের প্রবেশমুখে। কিন্তু সেই জার্সি পরা অবস্থায়ই কেউ কেউ কান্নায় ভেঙে পড়েন। যেন কোনো অতি আপনজনকে চিরদিনের জন্য হারিয়ে ফেলেছেন তারা।

মেসি বার্সা ছেড়ে চলে যাবেন, তার কাছ থেকে এ ঘোষণা আসার পর থেকেই সারাবিশ্বের অগণিত বার্সা সমর্থক হতাশায় ভেঙে পড়েন। কারও কাছেই খবরটা বিশ্বাসযোগ্য হচ্ছে না। মেসি আর বার্সা যেখানে মুদ্রার এপিঠ ওপিঠ- সেখানে কীভাবে দুজনের বিচ্ছেদ সম্ভব? এটা যেন ভাবতেই পারার কথা নয় কারো জন্য। সে কারণেই মেসির এ ঘোষণা মেনে নিতে পারেনি ভক্তরা। বার্সেলোনায় তো কয়েক দিন আগে বিক্ষোভও হয়েছে।

স্প্যানিশ মিডিয়া দৈনিক মার্কা রিপোর্ট প্রকাশ করেছে, বার্সেলোনার ট্রেনিং গ্রাউন্ডের সামনের রাস্তায় ফুটপাতে হতাশায় মুষড়ে পড়া দুই ক্ষুদে ভক্ত বসে রয়েছেন মাথা নিচু করে। তারা যেন বিশ্বাসই করতে পারছেন না, ‘আজ বার্সার পিসিআর টেস্টে মেসি নেই এবং তার আসার সম্ভাবনাও কম।’

ক্ষুদে ভক্ত-সমর্থকরা অপেক্ষার প্রহর গুনছিলেন স্যান্ট হোয়ান ডেসপি কমপ্লেক্সের সামনে। তারা একে একে দেখলো লুইস সুয়ারেজ, ইভান রাকিটিক, সার্জিও বুস্কেটস এবং জর্দি আলবারা আসছেন পিসিআর টেস্ট করাতে, কিন্তু মেসি আসলেন না। দূর থেকে একটি গাড়ি এগিয়ে আসতে দেখলেই তারা উদগ্রীব হয়ে উঠতেন, এই বুঝি মেসি এলো। কিন্তু না, দেখা গেল আরেকজন। হতাশায় তখন ভেঙে পড়তেন তারা।

মেসির এক ভক্তকে তো দেখা গেল বার্সার ট্রেনিং গ্রাউন্ডের প্রবেশপথের গেট ধরে কান্নায় ভেঙে পড়ছেন। রীতিমতো বিলাপ করে মেসির জন্য কান্না করছিলেন তিনি।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন