৫১পেরিয়ে ৫২বছরে পদার্পণ বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

সোমবার, ১৭ আগস্ট, ২০২০

৫১পেরিয়ে ৫২বছরে পদার্পণ বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের


মুশফাকুর রহমান, বিয়ানীবাজার প্রতিনিধি: 
পূর্ব সিলেটের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ৫২ বছরে পদার্পন করেছে। কলেজটি বিয়ানীবাজার মহাবিদ্যালয় নামে ১৯৬৮ সালের ১৫ আগস্ট যাত্রা শুরু করে।

কলেজ সূত্রে জানা যায়, প্রাচ্যবিদ্যার পরম্পরা ও পূর্বসূরিদের বিদ্যাচর্চা এবং জ্ঞানসাধনার সুপ্রাচীন ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতার প্রতীক বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ। মানবতাবাদী জমিদার স্বর্গীয় প্রমথনাথ দাসের (পাঁচ একর) ভূমিদানসহ এতদঞ্চলের সমাজহিতৈষী একদল বিদ্যানুরাগী ব্যক্তির ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় কলেজটি প্রতিষ্ঠা লাভ করে। এ অঞ্চলের শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার লাভের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে বৃহত্তর সিলেট জেলায় থানা পর্যায়ে প্রথম কলেজ হিসাবে ১৯৬৮ সালে কলেজটি স্থাপন করা হয়।

সিলেটের বিয়ানীবাজারের টিলাভূমির মতো সাড়ে তিন একর জায়গার উপর ১৯৬৮ সালে প্রতিষ্ঠিত বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের। পরবর্তীতে ১৯৮৮ সালে কলেজটিকে সরকারিকরণ করা হয়। সিলেট জেলার উত্তর-পূর্ব সাতটি উপজেলার প্রায় সাড়ে আট হাজার শিক্ষার্থী এই কলেজে পড়াশোনা করেন। ২০১৭-২০১৮ শিক্ষা বর্ষ থেকে স্নাতক সম্মান কোর্স চালু হওয়ায় কলেজটি এখন উত্তর-পূর্ব এলাকার একমাত্র উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

স্থানীয় প্রমথ নাথ দাসের দান করা ৫ একর ভূমির ওপর ১৯৬৮ সালের ১৫ আগস্ট বিয়ানীবাজার কলেজের একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হয়। পরবর্তীতে ১৯৮৮ সালের ৩০ জুলাই কলেজটিকে জাতীয়করণ করা হয়। কলেজের প্রথম অধ্যক্ষ ছিলেন মোঃ ইমদাদুর রহমান (ভারপ্রাপ্ত)। এর পর থেকে এখন বর্তমান পর্যন্ত ৩৫ জন শিক্ষক বিভিন্ন মেয়াদে অধ্যক্ষ ও ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করেছেন।

বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজকে এগিয়ে নিতে সদ্য বিদায়ী অধ্যক্ষ প্রফেসর দ্বারকেশ চন্দ্র নাথ এবং উপাধ্যক্ষ মো. তারিকুল ইসলাম অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। কলেজকে একটি অভিষ্ট লক্ষ্যে উন্নতি করতে কাজ করেছেন এ দুই শিক্ষাবিদ। বর্তমানে উপাধ্যক্ষ মো. তারিকুল ইসলাম প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

এদিকে, কলেজ প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে প্রতিষ্ঠার পর থেকে গৌরবের ৫২ বছর পার করলেও কখনো আনুষ্ঠানিকভাবে এ বিদ্যাপীটের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করেনি কলেজ কর্তৃপক্ষ। তবে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া অদৃশ্য করোনা ভাইরাসের কারণে দেশের অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সাথে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজও বন্ধ থাকার ফলে এবার ইচ্ছা থাকলেও সেই শুভক্ষণটি উদযাপন করা সম্ভব হয়নি।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন