জঙ্গি ধরতে সিলেটে অপারেশন "এলিগ্যান্ট বাইট" - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

বুধবার, ১২ আগস্ট, ২০২০

জঙ্গি ধরতে সিলেটে অপারেশন "এলিগ্যান্ট বাইট"


নিজস্ব প্রতিনিধি:
গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গিবিরোধী অভিযানের পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দেশের বিভিন্ন স্থানে জঙ্গিবিরোধী অপারেশন পরিচালনা করেছে। ঝুঁকিপূর্ণ অপারেশনগুলো আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বেশ দক্ষতার সঙ্গেই চালিয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চালানো ওই সব অপারেশনের বিভিন্ন নাম দেওয়া হয়েছিল। সর্বশেষ সিলেটে জঙ্গিবিরোধী যে অভিযান চালানো হয়েছে, তার নাম দেওয়া হয়েছে অপারেশন ‌‘এলিগ্যান্ট বাইট’।

আজ বুধবার (১৩ আগস্ট) দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন করে এমন তথ্য জানান ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (সিটিটিসি) মো. মনিরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, গতকাল সিলেটে অপারেশন এলিগ্যান্ট বাইট চালানো হয়। এ সময় সিলেটের মিরাবাজার, টুকের বাজার, দক্ষিণ সুরমার বিভিন্ন স্থান থেকে শেখ সুলতান মোহাম্মদ নাইমুজ্জামান (২৬), সানাউল ইসলাম সাদি (২৮), রুবেল আহমেদ (২৮), আব্দুর রহিম জুয়েল (৩০) ও সায়েম মির্জাকে (২৪) গ্রেফতার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে বোমা তৈরির সরঞ্জাম, ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

মনিরুল আরো বলেন, গ্রেফতারকৃতরা নব্য জেএমবি’র সামরিক শাখার সদস্য। তারা কথিত আইএস এর দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য এবার ঈদুল আযহা’র পূর্বে দেশের বিভিন্ন স্থানে হামলার পরিকল্পনা গ্রহণ করে। এর অংশ হিসেবে তারা গত ২৪ জুলাই ঢাকা পল্টনে পুলিশ চেকপোস্টের পাশে, গত ৩১ জুলাই নওগাঁ জেলার সাপাহার এলাকায় হিন্দু ধর্মালম্বিদের মন্দিরে বোমা হামলা করে। গত ২৩ জুলাই হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার শরীফে আরেকটি হামলার পরিকল্পনা গ্রহণ করে। এর মধ্যে তারা পল্টন ও সাপাহারে বোমা বিস্ফোরণ ঘটাতে সক্ষম হয়। কিন্তু সিলেটে পুলিশের কড়া নজরদারির কারণে ব্যর্থ হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ১ জুলাই রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজানে হামলার পর দেশি-বিদেশি নাগরিকদের জিম্মি করে নব্য জেএমবির পাঁচজনের একটি দল। জঙ্গিদের হামলায় দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ দেশি-বিদেশি ২২ নাগরিক মারা যান। এ ঘটনায় সেনা কমান্ডো দলের নেতৃত্বে ‘অপারেশন থান্ডার বোল্ট’ চালানো হয়। এতে ৫ জঙ্গি ও রেস্টুরেন্টটির দুই স্টাফ নিহত হয়।

একই বছর  ২৬ জুলাই রাজধানীর কল্যাণপুরের তাজ মঞ্জিলের (জাহাজ বাড়ি) জঙ্গি আস্তানায় ‘অপারেশন স্ট্রম ২৬’ চালানো হয়। পরবর্তীতে অপারেশন রূপনগর, অপারেশন আজিমপুর, অপারেশন শরতের তুফান, অপারেশন রিপল ২৪, অপারেশন অ্যাসল্ট১৬, অপারেশন টোয়াইলাইট, অপারেশন হিটব্যাক, অপারেশন ম্যাক্সিমাস, অপারেশন স্ট্রাইক আউট, অপারেশন সাটল স্প্লিট, অপারেশন ঈগল হান্ট, অপারেশন সান ডেভিল নামসহ আরো অনেক অভিযান চালায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন