চট্টগ্রাম বিভাগসহ সারাদেশ ডাঃ আবু সাঈদ কে মিথ্যা মামলার আসামি করায় প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

সোমবার, ২০ জুলাই, ২০২০

চট্টগ্রাম বিভাগসহ সারাদেশ ডাঃ আবু সাঈদ কে মিথ্যা মামলার আসামি করায় প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত


শেখ শাহনূর সোলমান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার:

বাংলাদেশ মেডিকেল টেকনোলজিস্ট এসোসিয়েশন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার উদ্যোগে ১৯ জুলাই রবিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের কনফারেন্স রুমে বিএমএ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সাধারণ সম্পাদক ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডাঃ মোঃ আবু সাঈদ এর বিরুদ্ধে মিথ্যা বানোয়াট মামলার আসামি করায় মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সভাটি বাংলাদেশ মেডিকেল টেকনোলজিস্ট এসোসিয়েশন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এসএম জুনায়েদ বাপ্পির উপস্থাপনায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সিনিয়র সহ-সভাপতি আজারুল ইসলাম নুর নবী। উক্ত সভায় বক্তারা দ্রুত অনিয়মতান্ত্রিক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এ মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান। সভায় বক্তারা বলেন, গত ০৬ জুলাই পাবনার জেলার রূপপুরের একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে ৫০টি স্যাম্পল করোনা পরীক্ষার জন্য নিয়ে আসে। এনালাইসিস ও পরীক্ষার মাধ্যমে ১১টি পজিটিভ ও ৩৯ টি নেগেটিভ রিপোর্ট দেয়া হয়।

 

যা ইমেলের মাধ্যমে রূপপুরের রিপোর্টসহ ৭৭টি রিপোর্ট স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, চট্রগ্রাম বিভাগীর কার্যালয়, পাবনা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সিভিল সার্জন অফিসে নিয়ম মাফিক প্রেরণ করা হয়। এসব পরীক্ষার এনালাইসিসসহ রিপোর্ট গ্রাফ পিসিআর মেশিনের ফ সংরক্ষিত রয়েছে। এতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিকেল কলেজের কোনো অনিয়ম নেই। কিন্তু এসব কোনো কিছু তোয়াক্কা না করেই প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির সুনাম ক্ষুন্ন করতে চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর রয়েছে এবং অর্থ হাতিয়ে নিয়ে প্রতারনা করা হয়েছে বলে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে উল্লেখ করা হয়েছে ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান ডাঃ মোঃ আবু সাঈদ এর বিরুদ্ধে মিথ্যা বানোয়াট মামলার আসামি ও অসত্য সংবাদ প্রচার করে যাচ্ছে। যা সম্পূর্ণ অসত্য,মিথ্যা  ও একজন সম্মানিত ব্যাক্তিকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্যই একটি কুচক্রী মহল কাজ করছে বলে বক্তারা অভিয়োগ করেন।

 

এসময় বাংলাদেশ মেডিকেল টেকনোলজিস্ট এসোসিয়েশন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এসএম জুনায়েদ বাপ্পি বলেন, ডাঃ মোঃ আবু সাঈদ ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসী তথা পুরো বাংলাদেশের একজন অকৃত্রিম সেবক ও সৎ মানুষ। তিনি বাংলাদেশ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষকে ভালোবাসেন বলেই তিনি তার প্রতিষ্ঠানে পিসিআর ল্যাব স্থাপন করে করোনাকালীন সময়ে মানুষকে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালেও নিজ উদ্যোগে পিসিআর ল্যাব দেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। আর এই রকম একজন ভালো মানুষের নাহ মেই মিথ্যা মামলা ও অসত্য সংবাদ প্রচার করা হচ্ছে যা খুবই দুঃখ ও লজ্জাজনক।

তিনি এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বলেন, আমরা আশা করছি খুব শীঘ্রই সত্য প্রকাশিত হবে এবং আধার কাটিয়ে আলো উদিত হবে।


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন