পাল্টা জবাবে যুক্তরাষ্ট্রকে দূতাবাস বন্ধের নির্দেশ দিল চীন - Sangbad Protidin | সংবাদ প্রতিদিন

ব্রেকিং নিউজ

শুক্রবার, ২৪ জুলাই, ২০২০

পাল্টা জবাবে যুক্তরাষ্ট্রকে দূতাবাস বন্ধের নির্দেশ দিল চীন


সংবাদ প্রতিদিন ডেস্ক:
ট্রাম্প প্রশাসন কর্তৃক টেক্সাসের হিউস্টনে অবস্থিত চীনা দূতাবাস বন্ধের নির্দেশের দুইদিনের মাথায় এবার চীনের সিচুয়ান প্রদেশের চেংডুতে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাস বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে চীন।

সিএনএন এর খবরে বলা হয়, চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, দেশটির দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর চেংডুতে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাসের সব কাজকর্ম বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যা মার্কিন কূটনীতিকদের শুক্রবার সকালে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সেখানে আরও বলা হয়, হিউস্টনের চীনা দূতাবাস বন্ধের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র একতরফাভাবে ঘটনাটিকে উষ্কে দিয়েছে। বেইজিং বলছে, এটি আন্তর্জাতিক সম্পর্কের মৌলিক রীতিনীতির এবং আন্তর্জাতিক আইনের মারাত্মক লঙ্ঘন।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই বিবৃতিতে বলা হয়, "চীন এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বর্তমানে যে পরিস্থিতি চলছে তা চীন দেখতে চায় না এবং এর সম্পূর্ণ দায় যুক্তরাষ্ট্রের উপরই বর্তায়। আমরা যুক্তরাষ্ট্রকে আবারও আহ্বান জানাচ্ছি দুই দেশের সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে তারা যেন তার ভুল সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নেয়।"

তবে এই বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কোনো বক্তব্য জানতে পারেনি সিএনএন।

নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, দূতাবাস বন্ধের পাল্টাপাল্টি নির্দেশ ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের সম্পর্কের অবনমনের ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা। এর আগে নানা ইস্যুতে দুই পক্ষ থেকেই ভিসা বন্ধ করে দেওয়া, কূটনীতিকদের জন্য নতুন ভ্রমণ নীতি চালু করা, সাংবাদিকদের প্রবেশে বাধা দেওয়াসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ আসলেও দূতাবাস বন্ধের মাধ্যমে  এই দুই দেশের মধ্যকার বিবাদ আরও গভীর হবে।

এর আগে গত বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের হিউস্টন শহরে চীনের কনস্যুলেট বন্ধের নির্দেশ দেয় যুক্তরাষ্ট্র। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত চীন তখন পাল্টা পদক্ষেপ নেওয়ার হুমকি দিয়েছিল।

বুধবার বেইজিংয়ে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েবিন জানিয়েছিলেন, "'যুক্তরাষ্ট্র দেশটির চতুর্থ জনবহুল শহর হিউস্টনে অবস্থিত কনস্যুলেট (উপ-দূতাবাস) বন্ধে আমাদের তিনদিন সময় বেঁধে দিয়েছে। এটা নজিরবিহীন পদক্ষেপ। ট্রাম্প প্রশাসন মারাত্মক এ ভুল সংশোধন করার উদ্যোগ না নিলে- চীন এর বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবে।"
ট্রাম্প প্রশাসন কর্তৃক টেক্সাসের হিউস্টনে অবস্থিত চীনা দূতাবাস বন্ধের নির্দেশের দুইদিনের মাথায় এবার চীনের সিচুয়ান প্রদেশের চেংডুতে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাস বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে চীন।

সিএনএন এর খবরে বলা হয়, চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, দেশটির দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর চেংডুতে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাসের সব কাজকর্ম বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যা মার্কিন কূটনীতিকদের শুক্রবার সকালে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সেখানে আরও বলা হয়, হিউস্টনের চীনা দূতাবাস বন্ধের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র একতরফাভাবে ঘটনাটিকে উষ্কে দিয়েছে। বেইজিং বলছে, এটি আন্তর্জাতিক সম্পর্কের মৌলিক রীতিনীতির এবং আন্তর্জাতিক আইনের মারাত্মক লঙ্ঘন।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই বিবৃতিতে বলা হয়, "চীন এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বর্তমানে যে পরিস্থিতি চলছে তা চীন দেখতে চায় না এবং এর সম্পূর্ণ দায় যুক্তরাষ্ট্রের উপরই বর্তায়। আমরা যুক্তরাষ্ট্রকে আবারও আহ্বান জানাচ্ছি দুই দেশের সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে তারা যেন তার ভুল সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নেয়।"

তবে এই বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কোনো বক্তব্য জানতে পারেনি সিএনএন।

নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে, দূতাবাস বন্ধের পাল্টাপাল্টি নির্দেশ ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের সম্পর্কের অবনমনের ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা। এর আগে নানা ইস্যুতে দুই পক্ষ থেকেই ভিসা বন্ধ করে দেওয়া, কূটনীতিকদের জন্য নতুন ভ্রমণ নীতি চালু করা, সাংবাদিকদের প্রবেশে বাধা দেওয়াসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ আসলেও দূতাবাস বন্ধের মাধ্যমে  এই দুই দেশের মধ্যকার বিবাদ আরও গভীর হবে।

এর আগে গত বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের হিউস্টন শহরে চীনের কনস্যুলেট বন্ধের নির্দেশ দেয় যুক্তরাষ্ট্র। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত চীন তখন পাল্টা পদক্ষেপ নেওয়ার হুমকি দিয়েছিল।

বুধবার বেইজিংয়ে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েবিন জানিয়েছিলেন, "'যুক্তরাষ্ট্র দেশটির চতুর্থ জনবহুল শহর হিউস্টনে অবস্থিত কনস্যুলেট (উপ-দূতাবাস) বন্ধে আমাদের তিনদিন সময় বেঁধে দিয়েছে। এটা নজিরবিহীন পদক্ষেপ। ট্রাম্প প্রশাসন মারাত্মক এ ভুল সংশোধন করার উদ্যোগ না নিলে- চীন এর বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেবে।"

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন